মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১১:১০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
চেতনানাশক জুস খাইয়ে চালককে হত্যা, অটোরিকশা ছিনতাইচক্রের পাঁচ সদস্য গ্রেফতার লালমাইয়ের সুমিষ্ট পাহাড়ি কাঁঠালের সাতকাহন সাদিক মামুনের কবিতা ‘তোমাতেই খুঁজে পাই’ নগরীর নূর আইডিয়াল স্কুলের টিনের চালে নির্মাণাধীন ভবনের পিলার পড়ে ছাত্র নিহত পুকুর পাড়ে বিষের বোতল! ভেসে ওঠেছে বিভিন্ন প্রজাতের মাছ চান্দিনায় আধুনিক মাছ চাষ পদ্ধতি উন্নতিকরণ বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত কুবি শিক্ষক সমিতির ‘না’ বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার বিদায়-বরণ অনুষ্ঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে অনাস্থা কুবি শিক্ষক সমিতির ব্রাহ্মণপাড়া পুলিশের অভিযানে ৭৫ বস্তা ভারতীয় চিনি জব্দ, দুইজন গ্রেফতার কুমিল্লা জুড়ে কবি নজরুলের সঙ্গীত ও সাহিত্যের বর্ণিল অধ্যায় আটক ৩৯ কিশোরকে মুচলেকায় ছাড়িয়ে নিল অভিভাবকরা দেবিদ্বারে চেয়ারম্যান প্রার্থী সাহিদার প্রচারণায় সাবেক এমপি রাজী ফখরুল কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ব্যবসায়ীর মৃত্যু কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে সাংবাদিকদের সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মতবিনিময় শিক্ষার্থীর সৃজনশীল মেধা বিকাশে শিক্ষকের ভূমিকা ‘কুমিল্লা আরবান টিউশনি মিড়িয়া’ হাতিয়ে নিয়েছে কুবি শিক্ষার্থীদের অর্থ লক্ষাধিক টাকা কুমিল্লার মুরাদনগর বিএনপির প্রবীণ নেতা মতি মাষ্টারের ইন্তেকাল  কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড বিজয়নগরে যৌনকর্মী হত্যার দায়ে দুই জন গ্রেফতার

আপনার সন্তানের পড়ালেখার প্রতি আসক্তি আনুন

শিক্ষা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ৫ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১০৯ দেখা হয়েছে

বর্তমান সময়ে গেম কিংবা মোবাইলের প্রতি শিক্ষার্থীরা যে হারে আসক্ত হয়ে পড়ছে, এর থেকে উত্তরণের পথ হল পড়ালেখার প্রতি তাদের আসক্তি গড়ে তোলা। আর এই কাজটি অত্যন্ত দায়িত্বশীলতা ও নজরদারির সঙ্গে অভিভাবকদের করতে হবে। অভিভাবকরা যদি তার সন্তানের পড়ালেখার প্রতি আসক্তি তৈরি করতে চান তাহলে আপনার সন্তান গেম ও মোবাইলের প্রতি যে মনোযোগ নিয়ে বসে থাকে ওই মনোযোগের কাজটি সৃষ্টি করতে হবে পড়ালেখার প্রতি।

 

আপনার সন্তানের খুব সহজেই পড়ালেখার প্রতি আসক্তি আনা যায়।

 

উদাহরণস্বরূপ আমরা যদি বলি, আপনার সন্তান কোনো গেইম খেলতে গিয়ে প্রথম দিন সেই খেলাটা একেবারেই এক বিরক্তির কারণ বলে মনে করবে। কিন্তু সেই বিরক্তিকে মেনে নিয়ে, যদি সে পরের দিনও গেইমটা খেলতে বসে, সেইদিনও মনে বিরক্তির কারণ বলে মনে হবে। কিন্তু যদি সে একনাগাড়ে ৪/৫ দিন গেইমটা খেলতে বসে, তখন দেখা যাবে আস্তে আস্তে খেলাটা অনেকটা সহজ মনে হবে। ৬ দিনের মাথায় খেলাটার প্রতি একটা আকর্ষণ কাজ করবে। খেলাটা খেলতে মন চাইবে। যতক্ষণ খেলবে, তারপরও আরও বেশি করে খেলতে মন চাইবে।

 

অনুরূপভাবে পড়ালেখার ব্যাপারটাও এরকম।প্রথম দিন পড়তে বসলে এক ঘণ্টার মধ্যেই বিরক্তি চলে আসবে। সেই প্রথমদিকের এক ঘণ্টাকে মনে হবে মহাকালসম। এই এক ঘণ্টার ভার মনে হবে বুকে পাহাড় রেখে দেওয়ার মত অসহ্য, বই খাতা চরম শত্রু। কিন্তু এক ঘন্টার অথবা শুরুর এই বিরক্তির সময়টিতে পড়ার টেবিল ছেড়ে যাতে আপনার সন্তান উঠে না যায় এদিকে কঠোরভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে।

কেননা আমাদের অধিকাংশ মানুষ ঠিক এই জায়গাটাতেই ভুলটা করি। পড়ালেখা যখন শুরুর দিকেই বিরক্তি লাগে, তখনই শিক্ষার্থীরা পড়া থেকে উঠে আসতে চায়। কিন্তু ওই যে আপনার সন্তান যতক্ষণ না সেই বিরক্তিটাকে মেনে নিয়ে দীর্ঘ সময় পাড়ি দিচ্ছে, ততক্ষন ব্যাপারটা তার কাছে গেমের মত নেশা হচ্ছে না, বিরক্তিতেই থেকে যাচ্ছে। তাই এই পড়ালেখাটা আজীবনের জন্য আর নেশা হয়ে উঠে না।সাহস করে পড়ালেখার বিরক্তিটাকে সাথে নিয়ে দীর্ঘ সময় অতিক্রম করছে না।

 

এক্ষেত্রে একজন অভিভাবক হিসেবে আপনাকে এমন ভূমিকা পালন করতে হবে যাতে আপনার সন্তান বইয়ের পড়া ছেড়ে উঠে না আসে।

 

মনে রাখবেন, প্রথমদিন পড়তে বসলে বিরক্তি আসবেই। ৫/৬ ঘণ্টা চেয়ারে তবু বসিয়ে রাখুন সন্তানকে। তারপরে বসে থাকতে আর মন চাইবে না, পড়তে মন চাইবে না। তবু বসিয়ে রাখুন বই সামনে দিয়ে। এইভাবে বিরক্তিকে সাথে নিয়ে অন্তত ২/৩ দিন কিংবা বেশি হলে ৪/৫ দিনই সন্তানকে বই দিয়ে বসিয়ে রেখে দেখুন, ৬ দিনের দিনে গিয়ে আপনার সন্তানের পড়ার প্রতি নেশা জন্মাবে, আগ্রহ আসবে। ৭ দিনের দিনে ঠিকই সে পড়তে বসতে চাইবে, তার কাছেনপড়া ভালো লাগবে, সে পড়ালেখাকে ভালবেসে নেশা বানিয়ে ফেলবে সাহস করে। আর পড়ালেখার এই নেশাই তাকে সঠিক পথে পরিচালিত করবে।

লেখক:
মো. ফারুকুল ইসলাম
সিনিয়র শিক্ষক
নজরুল মেমোরিয়াল একাডেমী, কুমিল্লা।

Last Updated on April 5, 2024 4:01 pm by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102