শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লায় বেগম রোকেয়া দিবস পালন ও জয়িতা সংবর্ধনা কুমিল্লা স্টেডিয়ামে আবাহনী-ফরটিজের খেলা ১ -১ গোলে ড্র গোলাপবাগ মাঠে গণসমাবেশের অনুমতি পেল বিএনপি মির্জা ফখরুল ও মির্জা আব্বাস কারাগারে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আ’লীগের সভাপতি লোটাস কামাল সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক আওয়ামী লীগকে এতো সহজে ক্ষমতা থেকে সরানো যাবে না : কুমিল্লায় আ’লীগের সম্মেলনে শেখ সেলিম নাঙ্গলকোটে হাফেজদের পাগড়ী প্রদান ও কৃতি শিক্ষার্থীদের পুরষ্কার বিতরণ কুমিল্লায় খেলা হবে কোয়ার্টার ফাইনাল : ওবায়দুল কাদের কুমিল্লা মুক্ত দিবস উদযাপন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা যুবদল সভাপতি সহ দুইজন গ্রেফতার নয়াপল্টনে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে নিহত এক, আহত ২০ কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় ১৮ কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার  দাউদকান্দিতে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজরিত ডাকবাংলোর সংস্কার কাজের উদ্বোধন কুমিল্লার তিতাসে শয়নকক্ষে বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ কুমিল্লায় জামাত শিবিরের ২০ নেতা-কর্মী আটক বাগমারা স্কুল মাঠে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন কাল কুমিল্লার তিতাসে দুইপক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে রেলক্রসিং পারাপারের সময় ট্রেনের ধাক্কায় সিএনজি অটোরিকসার চার যাত্রী নিহত শেখ মনি’র জন্মদিনে কুমিল্লায় মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা পেল শীতবস্ত্র কিশোরগঞ্জ বুড়িচংয়ের ময়নামতিতে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে ১ জন নিহত

উর্বর মাটি ও অনুকূল আবহাওয়া : চাষাবাদেই বিপ্লব মেহেরপুরের কৃষিতে

রাজু আহমেদ, জেলা প্রতিনিধি মেহেরপুর
  • আপডেট টাইম সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০
  • ২২০ দেখা হয়েছে
মেহেরপুর জেলার অধিকাংশ মানুষের কৃষিই একমাত্র পেশা।  অসম্পূর্ণ যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে মেহেরপুর জেলায় এ পর্যন্ত কোনও শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেনি। কৃষিই এ জেলার প্রধান সম্পদ। উর্বর মাটি ও অনুকূল আবহাওয়া সময় সহায়তা করছে মেহেরপুরের কৃষিখাতকে।
কৃষিশস্য, মৎস্য, সবজি এবং গবাদি পশু পালনের ক্ষেত্রে মেহেরপুরের মানুষ সব সময় এগিয়ে।পদ্ধতিগত দিক থেকে মেহেরপুরের কৃষি এখনও সনাতন তবে কিছু আধুনিক পদ্ধতি প্রয়োগ হচ্ছে ইদানিং।
১৯৩৮ সালে ফ্লাড কমিশনের রিপোর্টে জানা যায়,এই অঞ্চলের ২৯% লোকই ভূমিহীন এবং ৪০% লোকের জমি আছে এক একরের কম। গড় হিসেবে শতকরা ২৫ ভাগ লোক ১ বিঘা পরিমাণ জমির মালিক। এই অঞ্চলের বিত্তবানদের প্রচুর পরিমাণ জমি থাকলেও তার যথাযথ ব্যবহার ছিল না। আবার অধিক লোকের কম পরিমাণ জমি থাকলেও যথাযথ কৃষিজ উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। ফলে কৃষককুলে নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তের উপস্থিতি প্রাচীনকাল থেকেই প্রকট। মধ্যবিত্তের কৃষির ধরণই ভরণ-পোষণ যোগ্য। এক কথায় খেয়ে পরে বাঁচা।কৃষির ধরণঃপ্রাকৃতিক ঋতুনির্ভর কৃষির বৈশিষ্টই মেহেরপুর জেলার কৃষির অন্যতম ধরণ।
প্রাচীনকাল থেকেই বৃষ্টিপাতের উপর নির্ভর করেই আবর্তিত হয়েছে পর্যায়ক্রমিক কৃষি। শুষ্ক মৌসুমে আউশ, বর্ষ মৌসুমে আমন শীতকালীন জলজমির বোরো আবাদ। মৌসুম ভিত্তিক ফসল শস্য। ৬০ এর দশকে রোপা আমন ও ইরি আবাদ, ৭০ দশকে আলু, গম আবাদের মাধ্যমে ভূমিতে সীমিত পর্যায়ে সেচকাজ শুরু হয়। অধিক উৎপাদনশীল এই ফসল উৎপাদনের জন্য সচে অন্যতম উপাদান ফলে নদী, খাল-বিল থেকে সেচের মাধ্যমে কৃষকরা কায়িকশ্রম দিয়ে জমিতে সেচকাজ চালাতো।
আধুনিক ফসলের ব্যাপক প্রষারের ফলে বর্তমানে জমিতে সারা বছরই আবাদ হচ্ছে। ফলে ঋতু নির্ভরতা ফসলের আবাদ নেই বললেই চলে। শস্যের ধরণ, মাটির বৈশিষ্ট্য, উদ্ভিদ বৈশিষ্ট্য  উদ্ভিদের আকার, সহনশীলতা, জলবায়ু, পানির প্রাপ্যতা ও আনুষঙ্গিক বৈশিষ্টের কারণে মেহেরপুরে চাষাবাদে এখন বিপ্লব এসেছে।

Last Updated on July 27, 2020 9:23 am by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102