সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:২৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দাউদকান্দিতে আওয়ামী লীগ নেতার গাড়ি ভাংচুর ও হামলার ঘটনায় মূল আসামী গ্রেফতার ইটভাটার মাটিতে কর্দমাক্ত কুমিল্লা-সিলেট সড়কে ঘটছে দুর্ঘটনা কুমিল্লা নগরীর আনন্দধারা বিদ্যাপীঠে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ কুমিল্লার লালমাই বাজারে চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা দাউদকান্দিতে এমপির সেচ্ছাধীন তহবিলের আর্থিক অনুদান পেল অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবার আলোকিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নজরুল মেমোরিয়াল একাডেমীর বর্ণাঢ্য বার্ষিক ক্রীড়ানুষ্ঠান বুড়িচংয়ে মিথলমা সমাজ কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে দুস্থদের আর্থিক সহায়তা দেবিদ্বারে ইটভাটার ট্রাক্টরে পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু কুমিল্লায় ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ দুই জন আটক মুরাদনগরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ফাউন্ডেশনের কার্যালয় উদ্বোধন বই মেলায় কুবি শিক্ষকের প্রথম উপন্যাস ‘মহারাজাধিরাজ’ অধুনা থিয়েটারের নাট্যউৎসবের লোগো উন্মোচন অবশেষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মুর্শেদ রায়হানকে অব্যাহতি ব্রাহ্মণপাড়ায় মেয়ের জন্য পাত্র দেখতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো পিতার চৌদ্দগ্রামে ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি স্থগিত তজুমদ্দিনে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা নগরীর ফুটপাতে কুসিকের উচ্ছেদ অভিযান ভাষায় দক্ষতা অর্জনই নিজেকে এগিয়ে নেবে : এলজিআরডি মন্ত্রী কায়কোবাদের নির্দেশে কুমিল্লার বিক্ষোভ সমাবেশে মুরাদনগরের শতশত নেতাকর্মী

কুমিল্লার মুরাদনগরে অপহরণের ৩৮দিন পর শিশু রহমানের লাশ উদ্ধার

রায়হান চৌধুরী, মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ, ২০২১
  • ৩৫০ দেখা হয়েছে

অপহরণের ৩৮দিন পর পাঁচ বছরের শিশু আবদুর রহমানের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।মুক্তিপণের আগেই শিশু রহমানকে হত্যা করে লাশ গুম করে রাখে অপহরণকারিরা।পরে মুক্তিপণের নাটক সাজিয়ে টাকা আদায় করতে গিয়ে ছদ্মবেশি পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে তিন অপহরণকারি।

ঘটনাটি কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার গাংগাটিয়া গ্রামে ঘটেছে।ওই গ্রামের ফারুক মিয়ার ছেলে শিশু রহমানের আপন ফুফা মুরাদনগর উপজেলার  বোড়ারচর গ্রামের আবু মুসার ছেলে নাজমুল হাসান (৩০) ছিলেন অপহরণের ঘটনার মূল হোতা।

সোমবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে মুরাদনগরের বাখরাবাদ এলাকা থেকে মুক্তিপণের টাকা নিতে আসা অপহরণকারি দলের একজন একই গ্রামের আবদুল বাতেন বেপারীর ছেলে মো. ময়নাল (৩৪) এবং একই রাতে মুল হোতা শিশুটির ফুফা নাজমুল ও  একই গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে রবিউল হাসানকে আটক করে মুরাদনগর থানা পুলিশ।

পরে সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে অপহরণের ঘটনার মূল হোতা নাজমুলের দেয়া তথ্যে মুরাদনগর উপজেলার বোড়ারচর এলাকা থেকে মাটি খুঁড়ে শিশু আবদুর রহমানের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে বাখরাবাদ এলাকায় ছদ্মবেশে অপহরণকারিদের ধরতে গিয়ে হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত হন দুই পুলিশ সদস্য।

 

# শিশু রহমানকে অপহরণ ও হত্যার ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করে মুরাদনগর পুলিশ।

পুলিশ ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ২০ ফেব্রুয়ারী দিবাগত রাতে নিজ ঘর থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় অপহরণ হয় শিশু আবদুর রহমান। এ সময় শিশু আবদুর রহমানের বাবা ফারুক হোসেনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও নিয়ে যায় অপহরণকারীরা।এ ঘটনার পরদিন  শিশুটির বাবা ফারুক মিয়া মুরাদনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

অপহরণের বেশ কিছুদিন পর ফারুকের ওই মোবাইল ফোন থেকে তার স্ত্রীর নাম্বারে ফোন করে ছেলের মুক্তিপণ হিসেবে পঞ্চাশ লাখ টাকা দাবি করেন অপহরণকারিরা।  বিষয়টি মুরাদনগর থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ অপহরণকারি চক্রকে ধরতে কৌশল অবলম্বন করে। আর সেই  সোমবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে মুরাদনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আবিদুর রহমানের নেতৃত্বে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এস আই হামিদুল ইসলামসহ সঙ্গীয় ফোর্স ছদ্মবেশে মুক্তিপণের টাকা দিতে বাখরাবাদ এলাকায় অপহরণকারিদের দেয়া ঠিকানায় যান। পরে সেখান থেকে মুক্তিপণের সর্বশেষ দাবিকৃত চার লাখ টাকা নিতে আসে অপহরণকারি চক্রের সদস্য ময়নাল। টাকা নিয়ে যাওয়ার সময় এসআই হামিদুল ইসলাম ময়নালকে ধরে ফেললে অপহরণকারি চক্রের অন্য সদস্য লাঠি দিয়ে হামিদুল ইসলামের ডান পায়ে আঘাত করলে তিনি পড়ে যান। তারপরেও তাকে না ছাড়লে ময়নাল এক পর্যায়ে পুলিশ সদস্য হামিদের গালে কামড় দেয়। হামিদের চিৎকার শুনে কিছুটা দুরে থাকা ছদ্মবেশধারী পুলিশ সদস্য রুবেল এসে ময়নালকে আটকে রাখার চেষ্টা করে।

এ সময় ময়নাল তার সাথে থাকা ছুরি দিয়ে পুলিশ সদস্য হামিদ ও রুবেলকে এলোপাথাড়ি আঘাত করতে থাকে। অবস্থা বেগতিক দেখে এসআই হামিদের সাথে থাকা বন্দুক দিয়ে ময়নালের পায়ে গুলি করেন। গুলির শব্দ শুনে আরো কিছুটা দুরে থাকা মুরাদনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আবিদুর রহমান ঘটনা স্থলে গিয়ে আহত দুই পুলিশ সদস্য ও অপহরণ কারি চক্রের সদস্য ময়নালকে মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। পরে ময়নালের দেয়া তথ্য অনুযায়ী সোমবার দিবাগত রাতেই অপহরণের পর হত্যার সাথে জড়িত নাজমুল হাসান ও রবিউল হাসানকে গ্রেফতার করা হয়।

ওই রাত ২টার দিকে অপহৃত শিশু রহমানের আপন ফুফা নাজমুলের দেয়া তথ্যে মুরাদনগর উপজেলার বোড়ারচর এলাকা থেকে মাটি খুঁড়ে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়।অপহরণকারিরা মুক্তিপণের টাকার আগেই শিশুটিকে হত্যার পর গুম করে রাখে।

মুরাদনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আবিদুর রহমান বলেন, শিশু আবদুর রহমান অপহরণের ঘটনায় ময়নাল, নাজমুল হাসান ও রবিউল হাসান নামের তিন অপহরণকারীকে আটক করেছি এবং তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ও স্বীকারোক্তিতে শিশু আবদুর রহমানের লাশ উদ্ধার করেছি।অন্যান্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

# দেশ-বিদেশের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে প্রতিসময় (protisomoy) ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

Last Updated on March 30, 2021 7:28 pm by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102