বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:০১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লার বুড়িচংয়ে একদিনে তিন জনের আত্মহত্যা এলজিইডি কুমিল্লা দপ্তরে মান নিয়ন্ত্রণ ল্যাবরেটরি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত ধর্মের অপব্যাখ্যা রোধে ওলামা মাশায়েখদের মূখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে : উপজেলা চেয়ারম্যান টুটুল কুমিল্লাস্থ বরুড়া উপজেলা উন্নয়ন সমিতির উদ্যোগে সহস্রাধিক শিক্ষার্থী পেল খাবার ও কলম কুমিল্লার সদর দক্ষিণে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার প্রায় এক যুগ পর মুরাদনগরে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার সংস্কার কাজের উদ্বোধন শত কেজি গাঁজা ও ইয়াবা ট্যাবলেট সহ দুই ভারতীয় নাগরিক আটক শেখ হাসিনা উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেন আবার তা বাস্তবায়নও করেন : কুমিল্লা জেলা প্রশাসক চান্দিনায় এমপি’র পর এবার অনুসারীদের ভিডিও ভাইরাল চান্দিনায় পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইকালে চারজন আটক ব্রাহ্মণপাড়ায় মসজিদের ইমামকে গলা কেটে হত্যা চেষ্টার  অভিযোগে একজন গ্রেফতার  যোগদান করেই বুড়িচং থানার নতুন ওসি ইসলাম হোসেন যা বললেন রবীন্দ্রের মাত্র ২৪ হাজারের মরোনত্তর বীমা দাবির লক্ষাধিক টাকার চেক পেল নমিনি রমা রানী কুমিল্লায় র‍্যাবের অভিযানে ভারতীয় পণ্যসহ পাঁচ চোরাকারবারি আটক ভাষার মাসে ৫২ তে দৈনিক রূপসী বাংলা কুমিল্লা টাউনহল মাঠে বিএনপির সমাবেশে মুরাদনগরের সহস্রাধিক নেতাকর্মীর অংশগ্রহণ  দাউদকান্দিতে ৫শ পিস ইয়াবা সহ মাদক কারবারি আটক দেশে সত্যিকার গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে রাজপথের আন্দোলনের বিকল্প নেই : কুমিল্লার সমাবেশে ড. খন্দকার মোশাররফ সিসি ক্যামেরায় চোরের দেখা মিললেও উদ্ধার হয়নি মোটরসাইকেল খলিফায়ে আজম শাহসূফি আলমগীর খান মাইজভান্ডারীর খোশরোজ শরীফ উদযাপন

কুমিল্লায় বিএনপির গণসমাবেশ : মঞ্চজুড়ে বিশৃঙ্খলায় বিরক্ত কেন্দ্রিয় নেতারা

নেকবর হোসেন, স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট টাইম সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২
  • ৮৫ দেখা হয়েছে
কুমিল্লায় বিএনপির গণসমাবেশ মঞ্চের অবস্থা....

কুমিল্লা জেলায় গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে প্রচার, সমাবেশে জড়ো হতে আপ্রাণ চেষ্টা। নির্ধারিত সময়ের দুই দিন আগে থেকেই জড়ো হওয়া, শেষ পর্যন্ত বিরাট জমায়েত। তবে শনিবারের সমাবেশ নিয়ে বিএনপিতে যত উচ্ছ্বাস, তার চেয়ে হতাশা, ক্ষোভও কম নয়।

 

কান্দিরপাড়ে টাউন হলে সমাবেশ শেষে এখন তুমুল আলোচনা মঞ্চের বিশৃঙ্খলা নিয়ে। সমাবেশস্থলে এসেও ফিরে গেছেন সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহছানুল হক মিলন। যারা বক্তব্য রাখবেন, সেই তালিকায় ছিল না ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদের নাম। বক্তব্য না রাখতে পেরে দলটির বেশ কয়েকজন নেতা ক্ষোভও প্রকাশ করেন। মঞ্চজুড়ে সেদিন ছিল সেলফি তোলার হিড়িক, একের পর এক ফোন চুরি। এমন বিশৃঙ্খলায় বিরক্ত কেন্দ্রিয় নেতারাও। শনিবার বেলা ১১টায় ধর্মগ্রন্থ পাঠের মাধ্যমে সমাবেশ শুরু হয়। মঞ্চে ওঠেন কুমিল্লা, চাঁদপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কয়েকজন নেতা। তাদের সঙ্গে উঠে পড়েন অর্ধশত কর্মীও। ভিড় সামাল দিতে এগিয়ে আসেন কেন্দ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লা বুলু। মঞ্চের মধ্যেই স্থানীয় নেতা রেজাউল ইসলাম তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।

 

আয়োজকদের ভুলে বক্তব্যর তালিকায় নাম ছিল না কুমিল্লার সন্তান শওকত মাহমুদের। অবশ্য তিনি জানতে পেরে সমাবেশে যাননি। আগের দিন দুপুরে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী নিয়ে কুমিল্লায় আসেন সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহছানুল হক মিলন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি যান মঞ্চের সামনে। কিন্তু মঞ্চে উঠতে পারেননি। ক্ষোভে ফিরে যান সেখান থেকে। চাঁদপুর থেকে আসা একাধিক কর্মী বলেন, সমাবেশে বক্তার তালিকায় নাম না থাকায় তাদের নেতা-কর্মীদের নিয়ে ফিরে যান। মঞ্চে বসেও বক্তব্য না দিতে পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল গফুর ভুঁইয়া ও আনোয়ারুল আজিম। সমাবেশের পুরো সময়টাতে মঞ্চে কোনো শৃঙ্খলাই ছিল না। অবস্থা এমন হয়েছে যে কর্মীদের কারণে নেতাদের চেহারাও ভালো করে দেখা যায়নি। তাদের মধ্যে অনেকেই ব্যস্ত ছিলেন ছবি ও সেলফি তোলা নিয়ে। এ সময় বিরক্তি প্রকাশ করেন দলটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুমিন ফারহানা। এক কর্মী প্রায় গা ঘেঁষে সেলফি তোলায় রেগে ওই কর্মীকে সাবধানও করেন তিনি। আগের রাতে সমাবেশস্থল থেকে রুমিনের মোবাইল ফোনটি খোয়া যাওয়া নিয়ে এমনিতেই তিনি ছিলেন বিরক্ত।

 

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্যসচিব জসিম উদ্দিন বলেন, ৭০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩০ ফুট প্রস্থের ওই মঞ্চে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে থাকবেন বিএনপির পাঁচ সাংগঠনিক ইউনিটের জ্যেষ্ঠ নেতারা। সে লক্ষ্যে ৭০টি চেয়ার রাখা হয়েছিল। অন্যান্য বিভাগীয় গণসমাবেশের মতোই কুমিল্লাতেও খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের জন্য চেয়ার ফাঁকা রাখা ছিল। তবে মঞ্চে এত লোক আসবে ভাবতেও পারি নাই।

 

বিএনপি নেতা জসিম যখন কথাগুলো বলছিলেন, সে সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সাড়ে তিনশর বেশি কর্মী। বেলা ২টার দিকে মঞ্চে ওঠার সিঁড়িতে দলটির কর্মীদের ভিড় সামাল দিতে হিমশিম অবস্থা তৈরি হয় স্বেচ্ছাসেবক ও জ্যেষ্ঠ নেতাদের। নাম না প্রকাশ করার শর্তে এক স্বেচ্ছাসেবক বলেন, আমরা চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি। এ সময় অনেককেই দেখা গেছে মঞ্চে দুপুরের খাবার খাওয়া নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করতে।

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঞ্চে আসার কিছুক্ষণ পরই সংবাদ সংগ্রহে আসা দুই গণমাধ্যমকর্মীর সঙ্গে অসদাচরণ করেন মহানগর বিএনপির এক কর্মী। তিনি গালাগালের পাশাপাশি ওই দুই সাংবাদিকের ওপর হাত তোলার চেষ্টাও করেন। অন্য সাংবাদিকরা বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ জানালে দুই পক্ষের মধ্যে বাগবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। দলের শীর্ষ নেতারা যখন বক্তব্য রাখছিলেন তখন বেশির ভাগ কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবককে অন্য নেতাদের সঙ্গে ছবি ও সেলফি তুলতে ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে। মঞ্চে ওঠার সময় মির্জা ফখরুলকেও ঘিরে ধরেন শতাধিক সেলফি প্রত্যাশী। মঞ্চের এই চিত্র দেখে বিরক্তি প্রকাশ করেন বিএনপির মহাসচিব। যারা দায়িত্বে ছিলেন তাদের প্রতি ক্ষোভও ঝাড়েন তিনি।

 

মঞ্চে শৃঙ্খলা আনতে ব্যর্থ হয়ে রাগান্বিত হয়ে ওঠেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনও। বিএনপির কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া বলেন,সমাবেশে কারা বক্তব্য দেবেন, কাদের জন্য চেয়ার রাখা হবে সেই নির্দেশনা দেয়া ছিল কেন্দ্র থেকেই। সে তালিকায় নাম ছিল না সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহছানুল হক মিলন ও দলটির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদের। কেন তাদের নাম রাখা হয়নি এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা দলের সিদ্ধান্ত। এর বেশি আমি কিছু বলতে পারব না।’ বিশৃঙ্খলার বিষয়টি স্বীকার করে মোস্তাক বলেন, ‘কিছু উচ্ছৃঙ্খল পোলাপান আছে। সেলফি তুলে ফেসবুকে দেয়ার জন্য তারা মঞ্চে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে। এখানে আমাদের আরও সতর্ক হওয়ার দরকার ছিল’।

Last Updated on November 28, 2022 5:54 pm by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102