সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লা নগরীর আনন্দধারা বিদ্যাপীঠে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ কুমিল্লার লালমাই বাজারে চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা দাউদকান্দিতে এমপির সেচ্ছাধীন তহবিলের আর্থিক অনুদান পেল অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবার আলোকিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নজরুল মেমোরিয়াল একাডেমীর বর্ণাঢ্য বার্ষিক ক্রীড়ানুষ্ঠান বুড়িচংয়ে মিথলমা সমাজ কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে দুস্থদের আর্থিক সহায়তা দেবিদ্বারে ইটভাটার ট্রাক্টরে পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু কুমিল্লায় ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ দুই জন আটক মুরাদনগরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ফাউন্ডেশনের কার্যালয় উদ্বোধন বই মেলায় কুবি শিক্ষকের প্রথম উপন্যাস ‘মহারাজাধিরাজ’ অধুনা থিয়েটারের নাট্যউৎসবের লোগো উন্মোচন অবশেষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মুর্শেদ রায়হানকে অব্যাহতি ব্রাহ্মণপাড়ায় মেয়ের জন্য পাত্র দেখতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো পিতার চৌদ্দগ্রামে ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি স্থগিত তজুমদ্দিনে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা নগরীর ফুটপাতে কুসিকের উচ্ছেদ অভিযান ভাষায় দক্ষতা অর্জনই নিজেকে এগিয়ে নেবে : এলজিআরডি মন্ত্রী কায়কোবাদের নির্দেশে কুমিল্লার বিক্ষোভ সমাবেশে মুরাদনগরের শতশত নেতাকর্মী মুরাদনগরে স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় বাহেরচর গ্রামের জাকির গ্রেফতার প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়তে স্মার্ট শিক্ষার্থী গড়তে হবে -মেয়র রিফাত

তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরির কোটিপতি নুরু মাতুব্বর এখন দোকান পাহারাদার : হাসপাতালে শয্যাশায়ী পিতার পাশে নেই সন্তানরা

প্রতিসময় ডেস্ক
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২০৭ দেখা হয়েছে

 হাসপাতালের মেঝেতে চিকিৎসাধীন এক সময়ের কোটিপতি নুরু মাতুব্বর (ছবি সংগৃহিত) # 

অর্থ বিত্ত সুখ সবই ছিল ‘তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরি’র মালিক নুরু মাতুব্বরের সংসার ঘিরে। জীবনে চরম পরিশ্রম করে তিল তিল করে সম্পদ জুড়িয়েছেন।  ছেলেকে লন্ডন পড়াশোনা করিয়েছেন।  মেয়েদেরকে বিয়ে দিয়েছেন সম্ভ্রান্ত পরিবারে। অর্থ সম্পদ সবই লিখে দিয়েছেন ছেলে মেয়েদের নামে। আজ কোটিপতি নুরুর কিছুই নেই। তার মানবেতর জীবন “বাবা কেন চাকর” সিনেমার কাহিনীকেও হার মানায়।

মাদারীপুরের ‘তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরি’র মালিক এক সময়ের কোটিপতি ব্যবসায়ি নুরু মাতুব্বর (৬৫) এর পাশে নেই তার সন্তানরা। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে শয্যাশায়ী একসময়কার কোটিপতি নুরু মাতুব্বরকে দেখতে তার সন্তানরাও আসছেনা। অথচ নিজের সকল সম্পত্তি ছেলে-মেয়েদের নামে লিখে দিয়ে কোটিপতি নুরু মাতুব্বর চাকরি করেন অন্যের দোকান পাহারাদারের।  অসুস্থ হয়ে অসহায়ের মতো পড়ে রয়েছেন সদর হাসপাতালে।

চিকিৎসকরা বলছেন তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। কিন্তু ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে নিয়ে যাবে এমন কেউ নেই। চারদিন ধরে তার খোঁজখবর নিতে কেউই হাসপাতালে আসেনি।

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঝিকরহাটি গ্রামের নুরু মাতুব্বর চরমুগুরিয়া বাজার এলাকায় তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরির মালিক ও কোটিপতি ব্যবসায়ী ছিলেন। তার এক ছেলে, তিন মেয়ে ও স্ত্রী রয়েছে। ১৫ বছর আগে ছেলে-মেয়েদের নিজের সকল সম্পত্তি লিখে দেন।  বেশ কয়েক বছর আগে তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরিও বন্ধ হয়ে যায়।  এরপর থেকে ছেলে মেয়েরা আর তাদের পিতার খবর রাখে না।

জীবীকার জন্য জীবনের কঠিন সময়ে এসে সেই নুরু মাতুব্বর চরমুগুরিয়া বাজার এলাকায় যেখানে তার বিড়ি ফ্যাক্টরি ছিল সেখানকার একটি দোকানে রাতে পাহাদার হিসেবে কাজ নেন।  ওই দোকানের মালিক তাকে তিন বেলা খাবার দিতেন। আবার কখনও মানুষের বাড়িতে ঘুরে দু’বেলা খাবার খেতেন। দিন চারেক আগে খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করান স্থানীয় লোকজন।

হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মনিরুজ্জামান পাভেল জানালেন, নুরু মাতুব্বরকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন।  আর এজন্য দুইদিন আগে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করলেও তাকে সেখানে নিয়ে যাওয়ার কেউ নেই।

এদিকে বৃহস্পতিবার একটি অনলাইন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পর নুরু মাতুব্বরের চিকিৎসার দায়িত্ব নেয় সমাজসেবা অধিদফতর। পরে মুমূর্ষু নুরু মাতুব্বরকে দেখাশোনা করার জন্য আছিয়া আক্তার নামে একজন আয়া অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দেয়া হয়।

মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাইফুদ্দিন গিয়াস বলেন, ‘সদর হাসপাতালে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে থাকা বৃদ্ধের খোঁজ খবর নিতে কেউ আসে না শুনে আমি সকালে হাসাপাতালে তাকে দেখতে যাই।  তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নিয়ে আসি।  একজন অসুস্থ পিতার ভরণপোষণ ও খোঁজখবর না নেয়ায় সন্তানদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

# দেশবিদেশের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন

Last Updated on September 4, 2020 6:28 am by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102