সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:৪১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লা নগরীর আনন্দধারা বিদ্যাপীঠে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ কুমিল্লার লালমাই বাজারে চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা দাউদকান্দিতে এমপির সেচ্ছাধীন তহবিলের আর্থিক অনুদান পেল অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবার আলোকিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নজরুল মেমোরিয়াল একাডেমীর বর্ণাঢ্য বার্ষিক ক্রীড়ানুষ্ঠান বুড়িচংয়ে মিথলমা সমাজ কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে দুস্থদের আর্থিক সহায়তা দেবিদ্বারে ইটভাটার ট্রাক্টরে পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু কুমিল্লায় ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ দুই জন আটক মুরাদনগরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ফাউন্ডেশনের কার্যালয় উদ্বোধন বই মেলায় কুবি শিক্ষকের প্রথম উপন্যাস ‘মহারাজাধিরাজ’ অধুনা থিয়েটারের নাট্যউৎসবের লোগো উন্মোচন অবশেষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মুর্শেদ রায়হানকে অব্যাহতি ব্রাহ্মণপাড়ায় মেয়ের জন্য পাত্র দেখতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো পিতার চৌদ্দগ্রামে ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি স্থগিত তজুমদ্দিনে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা নগরীর ফুটপাতে কুসিকের উচ্ছেদ অভিযান ভাষায় দক্ষতা অর্জনই নিজেকে এগিয়ে নেবে : এলজিআরডি মন্ত্রী কায়কোবাদের নির্দেশে কুমিল্লার বিক্ষোভ সমাবেশে মুরাদনগরের শতশত নেতাকর্মী মুরাদনগরে স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় বাহেরচর গ্রামের জাকির গ্রেফতার প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়তে স্মার্ট শিক্ষার্থী গড়তে হবে -মেয়র রিফাত

পর্যটক আসমা আজমেরির ভূতের রাজ্য

সাদিক মামুন
  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৯০ দেখা হয়েছে

হঠাৎ আলো নিভে অন্ধকার নেমে এলো।ভয়ানক শব্দ ভেসে আসছে।গা ছমছম করছে। ধীরে ধীরে মৃদু আলো জ্বলে উঠল।ছোট বড় ভুতের আনাগোনা শুরু।যেন ভূতের রাজ্য।খুলনা শহরে সন্ধ্যারাতে ভূতের আনাগোনার এমন দৃশ্য ক্ষণিকের জন্য হলেও সবাইকে ভয়ের পাশাপাশি আনন্দও দিয়েছিল।আর সীমিত পরিসরে বাড়ির পাশে ইন্সপায়ারিং ইয়ত নামে একটি সংস্থার তিনতলা জুড়ে   ভূতের রাজ্যের আয়োজন করে উপস্থিত দর্শকদের বিমোহিত করলেন খুলনার মেয়ে বাংলাদেশের অন্যতম নারী পর্যটক কাজী আসমা আজমেরি ও তার শিশু ভূতের দল।

গত দশ বছরে বাংলাদেশের সবুজ পাসপোর্টে ঘুরে ঘুরে ১১৫টি দেশ ভ্রমণ করেছেন অন্যতম নারী পর্যটক কাজী আসমা আজমেরি।বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য সম্পর্কে বেশ ধারণাও অর্জন করেছেন।ব্যবসা প্রশাসনে স্নাতক এবং হিউম্যান রিসোর্সে এমবিএ সম্পন্ন করা এ নারী পর্যটক দীর্ঘদিন নিউজিলান্ডে কাজ করেছেন রেডক্রসে।বর্তমানে নিজেই ঢাকায় একটি ট্র্যাভেল এজেন্সি পরিচালনা করছেন।

করোনা প্রাদুর্ভাবের আগেই বাংলাদেশে আসেন। দেশের কয়েকটি জেলায় নিজের ভ্রমণ অভিজ্ঞতা সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে শেয়ার করেছেন।দেশে করোনা প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার পর থেকে  নিজের জেলা খুলনার বাড়িতেই সময় কাটান নানা ব্যস্ততার মাঝে।করোনায় অস্বচ্ছলদের সহযোগিতা থেকে শুরু ছিন্নমূল শিশুদের মুখে হাসি ফোটানোর কাজেও নিজেকে মনোনিবেশ করেন। পরিকল্পনা থাকা সত্তে¡ও করোনার কারণে নতুন করে দেশ ভ্রমণ সম্ভব হয়ে উঠেনি। আসমা আজমেরি শিশুদের খুব ভালবাসেন।নিষ্পাপ শিশুদের মাঝে তিনি খুঁজে পান আনন্দের জয়গান।আর তাই শিশুদের নিয়ে দেশে এই পথ উদযাপন করলেন হ্যাপী হ্যালোইন ডে। অক্টোবর মাসের শেষদিন মানে ৩১ অক্টোবর দিনটি উৎসবমুখরভাবে পালন করা হয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। আমাদের দেশে বিশেষ করে ফাইভ স্টার মানের হোটেলগুলোতে এবং বিদেশীদের ক্লাবে ৩১ অক্টোবর হ্যালোইন ডে পালন করা হয়।

এশিয়ার বিভিন্ন দেশে ভূত সেজেগুজে বন্ধুবান্ধদের ভয় দেখানো, রেষ্টুরেন্টে আড্ডা, ক্লাব উদযাপন করার মধ্যদিয়েই সাধারণত হ্যালোইন ডে পালন করা হয়ে থাকে। আমেরিকা- ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এটির প্রচলন শুরু হয়েছে কয়েক দশক আগ থেকেই।বিশেষ করে ৩১অক্টোবর দিনটি পালন করা হয় মৃত আত্মাদের স্মরণে।হ্যালোইন পালন করা নিয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় মাতামাতির শেষ নেই।হ্যালোইন দিনটি সম্পর্কে লোকজ ধারণা রয়েছে, সেই রাতে যত প্রেতাত্মা ও অতৃপ্ত আত্মা আছে, সবাই নাকি চলে আসে লোকালয়ে। আর সেই সব ভূত-প্রেতদের খুশি করতে না পারলে তো বিপদ! আর সে জন্যই এই রাতটিতে পালন করা হয় হ্যালোইন উৎসব।ওইদিন উড়ন্ত ঝাড়ুতে করে হ্যালোইন ডাইনি সারা উড়ে বেড়ায় আকাশ জুড়ে। কখনও বা সবুজ খরখরে দেহের ডাইনি বুড়ি কড়া নাড়ে কোনো বাড়ির দরজায়।

বিদেশে অনেকগুলো উৎসবের মধ্যে হ্যালোইন উৎসব মজার।ইউরোপ-আমেরিকার বিভিন্ন দেশ ভ্রমণের সুবাদে হ্যালোইন উৎসবের নানা দিক ও আনন্দ সম্পর্কে ধারণা রয়েছে পর্যটক আসমা আজমেরির।আর তাই এ উসবের আনন্দের সাথে নিজ জেলা খুলনার শিশুদের পরিচিত করতে গত ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যায় আসমা আজমেরির শহরের রায়পাড়া বাড়ির পাশেই তার পরিচালনাধীন ইন্সপায়ারিং ইয়তের বিল্ডিংয়ের তিনটি ফ্লোরে আয়োজন করলেন হ্যালোইন ডে’র জমকালো উৎসব।

এলাকার ছোট ছোট বাচ্চা থেকে শুরু করে টিনেজার ছেলেমেয়েদের হ্যালোইনের থিম সম্পর্কে বুঝিয়ে দিলেন আসমা আজমেরি।তারপর শুরু।নানান রকম ভঙ্গিমায় ভয়ঙ্কর ভয়ঙ্কর ভূতের আওয়াজ ও আকস্মিক আক্রমনে যে অতিথিরা  উৎসব দেখতে এসেছিলেন তারাও ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে উঠেছিলেন। দর্শকদের বসার ব্যবস্থাও করা হয়েছিল।ভূতের জন্য ট্রিক অর ট্রিট ছিল বাংলাদেশি পিঠা পুলি, মিষ্টি ও চকলেটের ব্যবস্থা।সবমিলে পর্যটক আসমা আজমেরিসহ ছোট্ট শিশু ও টিনেজার যারা ভূত সেজে নানারকম পারফরমেন্স করেছে তা ছিল দেখার মতো।

হ্যালোইন ডে সম্পর্কে পর্যটক আসমা আজমেরি জানান, আমি ইউরোপ-আমেরিকার বিভিন্ন দেশে অক্টোবর মাসের শেষদিন হ্যালোইন ডে পালন করতে দেখেছি। সেখানকার শিশুরা বেশ উপভোগ করে এধরণের আয়োজন।বিদেশি কালচারের সাথে আমাদের খুলনা শহরের মানুষদের পরিচিত করার জন্য এ আয়োজন।আমিও চেয়েছিলাম আমাদের শিশুরা এধরণের একটি আয়োজনে যুক্ত হয়ে আনন্দ উপভোগ করুক।স্বপ্নচূড়ার একদল ছিন্নমূল হ্যালোইন উৎসবে যোগ দিয়ে অনেক খুশি হয়েছে। তাদের উৎসাহ-উদ্দিপনায় আমিও খুশি। ভূতের মেলায় যারা অংশ নিয়েছে তারে জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছিল। এখানকার ছোট্ট বন্ধু রিদি ও তার বন্ধুরা আমাকে এটি আয়োজনে সহায়তা করেছে।শিশুদের নিয়ে ভূতের এ আয়োজন করার উদ্দেশ্য হচ্ছে- ‘ভয় কে জয় করি, এসো ভুতের সাথে খেলি’।গ্রাম বাংলা মানুষেরা কিন্তু আজও ভূতের ভয় পায়। ভূতের ভয় কে জয় করাই ছিল হ্যালোইন ডে আয়োজনের  মূল লক্ষ্য।

# দেশ-বিদেশের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে প্রতিসময় (protisomoy) ফেসবুক পেইজে লাইক দিন।  এছাড়া protisomoy news ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন ও বেলবাটন ক্লিক করে নতুন নতুন নিউজ পেতে অ্যাকটিভ থাকুন। 

Last Updated on November 10, 2020 5:30 pm by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102