সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১১:৩৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
প্রয়োজনীয়তা যাচাই-বাছাই চলছে কুসিকের ৭৭৭ জন অস্থায়ী কর্মীর দেড় লাখ টাকা জরিমানা গুনলো কুমিল্লার রিভারভিউ ও ইস্ট জোন ফিলিং স্টেশন সদর দক্ষিণে ফেন্সিডিলসহ এক মাদক কারবারি আটক দাউদকান্দিতে চার মাসের শিশুকে আছড়ে মারার অভিযোগ পিতার বিরুদ্ধে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে কৃষকের মুনাফা কম হবে : কুমিল্লায় কর্মশালায় কৃষিমন্ত্রী মুরাদনগরে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু! বুড়িচং দেবপুর ফাঁড়ি পুলিশের হাতে দুই মাদক কারবারি আটক চান্দিনায় মাইক্রোবাসের ইঞ্জিনে আগুন : একজন নিহত মুরাদনগরে কানিয়া জাতের তরমুজ চাষে এক সফল কৃষকের সাতকাহন সদর দক্ষিণে মাদক কারবারি আটক কুমিল্লার পেশাদার সাংবাদিকদের নতুন সংগঠন ‘কুমিল্লা সাংবাদিক কল্যাণ সমবায় সমিতি’র আত্মপ্রকাশ বরুড়ায় শিক্ষকের বেত্রাঘাতে মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু কুমিল্লা সাংবাদিক ইউনিয়নের নতুন কমিটি : দিলীপ সভাপতি জিতু সাধারণ সম্পাদক  সদর দক্ষিণে ১০ বছর আত্মগোপনে থাকার পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার যানবাহনের বেপোরোয়া গতি : কুমিল্লায় জুলাই মাসে সড়কে নিভে গেছে ৩০ প্রাণ “বিশ্বাস অবিশ্বাস” সাদিক মামুনের কবিতা সামনে পরীক্ষাঃ সন্তানের পড়ালেখায় অভিভাবকের ভূমিকা দেবিদ্বারে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রী আটক কুসিকের প্যানেল মেয়র হলেন সাদি মনি সুমি সদরের জগন্নাথপুরে একটি আইসক্রিম ফ্যাক্টরিকে অর্ধলক্ষ টাকা জরিমানা

২০২১ সাল : কুমিল্লায় ১১০ খুন

সাদিক মামুন
  • আপডেট টাইম শনিবার, ১ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১১০ দেখা হয়েছে
# ২০২১ সালের আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর কাউন্সিলর সোহেল হত্যাকান্ড।ফাইলফটো

শতাধিক খুনের ঘটনার মধ্যদিয়ে ২০২১ সাল পার করেছে শিক্ষা, সংস্কৃতি ও প্রাচীন ঐতিহ্যের জেলা কুমিল্লা। একের পর এক খুনের ঘটনায় আতঙ্কিত সময় পার করেছে সাধারণ মানুষ। রাজনৈতিক নেতৃত্বের আধিপত্য, পারিবারিক কলহ-দ্বন্ধ, পরকীয়া, যৌতুকের কারণ, মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায়, অপহরণ ও মুক্তিপণ না পেয়ে প্রতিমাসে জেলায় গড়ে ৯টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। একটি খুনের মামলার তদন্ত শুরু না হতেই আরেকটি খুন। এভাবেই ২০২১ সালে প্রায় ১১০টি খুনের ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লায়।

কুমিল্লা জেলা পুলিশের অপরাধচিত্রের তথ্যানুসারে এবছর জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কুমিল্লার ১৭টি থানা এলাকায় ১১০টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। এসব খুনের মধ্যে আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর মামলায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে এমন সংখ্যাও কম নয়। এর মধ্যে কয়েকটি আলোচিত খুনের মধ্যে ২২ নভেম্বর কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র সৈয়দ মো. সোহেল ও তার রাজনৈতিক সহকর্মী খুনের ঘটনা দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচিত হয়েছে। নিজ কার্যালয়ে দুর্বৃত্তদের পিস্তলের ৯টি গুলিতে প্রাণ হারান সোহেল। এঘটনায় মামলার প্রধান আসামীসহ তিন জন পুলিশের সঙ্গে “বন্দুকযুদ্ধে” নিহত হয়।

২০২১ সালে কুমিল্লায় কাউন্সিলর সোহেল ও হরিপদ সাহা জোড়া খুনের ঘটনা ছাড়াও আরও তিনটি জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে পারিবারিক কলহের জের ধরে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের হালগাঁও গ্রামে শাশুড়ি বানু বিবি (৫০) ও স্ত্রী ফারজানা আক্তারকে (২৫) কুপিয়ে হত্যা করে ফারজানার স্বামী লোকমান।

এর আগের দিন ৮ ফেব্রুয়ারি পারিবারিক কলহের জের ধরে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের পুজকরা গ্রামে মা ও ভাবিকে কুপিয়ে হত্যা করেন এক ব্যক্তি।

পারিবারিক কলহের জেরে আরও একটি জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে ৫ সেপ্টেম্বর।কুমিল্লা সদরের সুবর্ণপুরে বৃদ্ধ শ্বশুর এবং শাশুড়িকে কম্বলচাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন তাদের পুত্রবধূ শিউলি (২৫)।

এছাড়াও পরকীয়ার ঘটনা দেখে ফেলায় ৫ বছর বয়সী কন্যা সন্তানকে খুন করে এক পাষন্ড পিতা।৭ নভেম্বর কুমিল্লার দেবিদ্বারে চাঞ্চল্যকর শিশু ফাহিমা হত্যাকান্ডের এ ঘটনা ঘটে।

চান্দিনা উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামে ঘটে আরেক চাঞ্চল্যকর খুন। ভাতিজাদের ফাঁসাতে ১ অক্টোবর রাতে চৌদ্দ বছর বয়সী নিজ কন্যা সালমা আক্তারকে গলাকেটে হত্যা করে পিতা সোলেমান।

মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় ৪ মে সদর দক্ষিণ উপজেলার মথুরাপুর সীমান্তবর্তী এলাকায় আলমগীর হোসেন নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নাঙ্গলকোট উপজেলার পশ্চিম জোড্ডায় ২৭ জুন এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর খুন করে দুবৃর্ত্তরা। কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়নের নারায়নপুর উত্তরপাড়ায় ১৪ জুলাই বিরোধের জের ধরে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুন হয়। মাদক সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২৩ ফেব্রæয়ারি সদর উপজেলার চাঁনপুর গ্রামে ছুরিকাঘাতে বাচ্চু মিয়ার ছেলে জনি (৩০) নামে এক যুবক খুন হয়।

এসব খুনের ঘটনা ছাড়াও বছরের শেষের দিকে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংস ঘটনাও উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছে। এ নির্বাচন ঘিরে সংঘাতের ঘটনায় মেঘনা ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।

কুমিল্লার বিশিষ্টজনরা বলেছেন, সামাজিক অস্থিরতা, নেতত্বের দ্বন্ধ ও অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় জেলায় খুনোখুনির ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক। তাই সমাজে বসবাসকারিদের একে অন্যের প্রতি সহনশীল হতে হবে। সম্পর্কের উত্তরণ ঘটাতে হবে। এছাড়াও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়ন, টহল ব্যবস্থা জোরদার এবং সাধারণ মানুষের অভিযোগ, পরামর্শ আমলে নেয়ার জন্য থানাগুলোতে নাগরিক সেবার মান বাড়াতে পারলে সামাজিক নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্ব পাবে এবং তাতে বিচ্ছিন্নভাবে সংঘটিত হত্যাকান্ড ও অন্যান্য অপরাধ প্রবনতা কমে আসবে। সর্বোপরি সব ধরনের অপরাধ দমনেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদা তৎপর থাকবে, এটাই কাম্য। অপরাধীদের দ্রুত বিচার সম্পন্ন করার বিষয়টিও খুব গুরুত্বপূর্ণ। অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করার পাশাপাশি মানুষের নৈতিক অবক্ষয় রোধেও নিতে হবে কার্যকর পদক্ষেপ।

Last Updated on January 1, 2022 9:38 am by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!