বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১০:৩৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সেবার মান সন্তোষজনক পর্যায়ে উন্নীত না পর্যন্ত গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা বিএনপির কেন্দ্রীয় ত্রাণ তহবিলে কুমিল্লা মহানগর বিএনপির চেক হস্তান্তর লাকসামে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু কুসিকের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর বাবুল কারাগারে কুমিল্লায় আইনগত সহায়তা সেবার মান উন্নয়নে এবং সহজীকরণে বিচারকগণের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত মুরাদনগরে গাছ কাটা নিয়ে ভিন্নমত ! স্থানীয়দের দাবী সামাজিক বনায়নের, বিক্রেতার দাবী নিজের রোপন করা গাছ দাউদকান্দিতে মাদকসহ আটক যুবলীগ নেতাকে বহিস্কারের দাবিতে মানববন্ধন মুরাদনগরে ড্রেজার মেশিন জব্দ কুমিল্লার খামারিরা শঙ্কিত ভারতীয় গরুর প্রবেশ নিয়ে  দেবীদ্বারে ট্রাকের চাপায় সিএনজি অটোরিকশা চালকের মৃত্যু মুরাদনগরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫শ পরিবারের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ   দুই বছর পর কুমিল্লার বিবিরবাজার স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী পারাপার শুরু মুরাদনগরে ২৫ জন দুস্থ নারী পেলেন সেলাই মেশিন রিফাত বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন পরীক্ষিত কর্মী : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী কোরবানীর হাটে নির্ধারিত হাসিল প্রতি ১ টাকায় ১১ পয়সা।। কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগাহে ঈদের জামাত সকাল আটটায় নিমসারে পিকআপ চুরির ১৫ মিনিটের মধ্যে তিন জন আটক কুমিল্লায় প্রবাসী হত্যা মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন সদর দক্ষিণে ১০০কেজি গাঁজাসহ দুই জন আটক  দেবীদ্বারে আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় মাদক বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত

রিফাত কায়সার সাক্কুকে নিয়ে সাধারণ ভোটারের ভাবনা

সাদিক মামুন
  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০২২
  • ৩৪৫ দেখা হয়েছে

কুসিক নির্বাচনের ভোট গ্রহণের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে আলোচিত তিন মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত, নিজাম উদ্দিন কায়সার ও মনিরুল হক সাক্কুকে নিয়ে ভোটারদের ভাবনা স্পষ্ট হয়ে উঠছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত দলীয় প্রতীক নির্ভর হলেও স্বতন্ত্র দুই প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার ও সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বিএনপি ঘরণার নেতা হওয়ায় তাদের ভোটও দলীয় নির্ভর। তবে রাজনৈতিক দলমতের উর্ধ্বে থাকা ভোটারদের ভাবনা চিন্তায় ভর করেছে এবারে শিক্ষিত ও নীতিবান নগরকর্তা নির্বাচিত করার বিষয়টিতে। আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্রের ব্যানারে (বিএনপির) দুই প্রার্থীর নেতাকর্মী, সমর্থকরা নিজেদের প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে প্রচার-প্রচারণার জায়গায় থাকলেও নগরীর অন্তত ত্রিশভাগ সাধারণ ভোটারের আগামীর ভাবনা হলো- যানজট ও জলাবদ্ধতামুক্ত এবং হঠাৎ চাপিয়ে দেওয়া ট্যাক্সের বোঝামুক্ত স্বপ্নের নগর কুমিল্লা গড়তে পারবেন যিনি তিনিই হবেন মেয়র।

এবারে কেমন মেয়র চান -এমন ভাবনার বিভিন্ন ওয়ার্ডের এসব সাধারণ ভোটারদের মধ্যে নিম্ন আয়ের লোকজন, সাধারণ চাকরিজীবী, মধ্যমশ্রেণির ব্যবসায়ি, সামাজিক-সাংস্কতিক সংগঠক, নতুন প্রজন্মের সাধারণ ও সুশিল সমাজের প্রতিনিধি রয়েছেন। যারা কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের তৃতীয় নির্বাচনকে ঘিরে ভোটের মাঠে আলোচিত প্রার্থী রিফাত, কায়সার ও সাক্কুকে নিয়ে ভাবতে শুরু করেছেন। আর এভাবনা থেকেই এসব ভোটাররা ১৫ জুন তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেবেন।

এসব সাধারণ ভোটারদের মাঝে অনুসন্ধান চালিয়ে জানা গেছে, এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নতুন মুখ আরফানুল হক রিফাত (নৌকা প্রতীক) বেশিরভাগ সাধারণ ভোটারের পছন্দের তালিকায় রয়েছেন নীতি নৈতিকতার কারণে। এসব ভোটারদের ধারণা তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী ছাত্রনেতা। দলের দু:সময়েও আদর্শবিচ্যুত হননি।আবার সাধারণ ভোটারদের অনেকেই তাদের মতামতে বলেছেন, নগরীর রাস্তায় সঠিক নীতিমালা ও পরিকল্পনার মধ্যদিয়ে সবধরণের যান চলাচল করলেও যানজট হবেনা এমন একটি প্ল্যানের কথা রিফাত তার পথসভায় প্রকাশ করেছেন। নগরীর বেশিরভাগ রাস্তা সরু। যানজট ও জলাবদ্ধতার সমস্যাও প্রকট। এসব বিপত্তি থেকে আরফানুল হক রিফাত মেয়র নির্বাচিত হলে সরকারি দলের লোক হিসেবে নগরবাসীকে স্বস্তি দিতে পারবেন। কারণ তার কাজের সঙ্গে সরকারের উন্নয়নের বিষয়টি ওতোপ্রতভাবে জড়িয়ে আছে। গত দশ বছর বিরোধীদলের মেয়র থাকায় নানাভাবে উন্নয়ন ব্যহত করা হয়েছে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য। তাদের মতে পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচিত হন মেয়র, এ পাঁচ বছর অনেক সময়, আন্তরিকতা থাকলে এ সময়ের মধ্যেই অনেক কিছু করা সম্ভব।কিন্তু বিগত সময়ের মেয়র দুইবারের দশ বছরেও পারেননি। তাই আওয়ামী লীগের নতুন মুখ হিসেবে রিফাতের হাত ধরে কুমিল্লা আধুনিকতর হয়ে ওঠবে এমন ভাবনাও প্রকাশ করেছেন অনেকে।

এবারের সিটি নির্বাচনে দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর সঙ্গে ভোটের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়ে বেশ চমক দেখাচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার। কুমিল্লা জেলা বিএনপির মূলধারার রাজনীতির অন্যতম নেতা হাজী আমিন উর রশিদ ইয়াছিনের শ্যালক কায়সার স্বেচ্ছাসেবক দল কুমিল্লা মহানগরের সভাপতি ছিলেন। ছাত্রদলের সাবেক এই নেতা হামলা-মামলা-জেল-জুলুম-নির্যাতন ভোগ করে বিএনপির রাজনীতিতে সক্রিয়। বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় তিনি দল থেকে অব্যাহতি নিয়ে মেয়র প্রার্থী হয়েছেন। তার প্রতীক ঘোড়া। কায়সারকে নিয়ে সাধারণ ভোটারদের ভাবনায় ওঠে এসেছে সে নির্বাচিত হলে নগরীর উন্নয়নে তারুণ্যের দায়িত্বশীল ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন এবং কুমিল্লা সিটি করপোরেশনকে একটি পরিকল্পিত মডেল নগরীতে রূপান্তরিত করবেন। অনেক সাধারণ ভোটাররা জানান, বড় বড় ভবন হয়েছে,কিন্তু এখনও সমস্যা ফুরায়নি। নাগরিকের আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে পারবেন এমন প্রার্থীর মধ্যে কায়সার এসময়ে অন্যদের চেয়ে পারফেক্ট। এসব সাধারণ ভোটারদের মতে কায়সারের মতো তরুণ জনপ্রতিনিধি ভবিষ্যতে ভালো কিছুর আশায় নগর উন্নয়নে নি:স্বার্থভাবে ভূমিকা রাখবে।

দ্বিতীয়বার বিএনপি থেকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর নিজ দলে নানা কারণে বিতর্কিত হয়ে উঠেন মনিরুল হক সাক্কু। গত ৫ বছরে বিএনপির মুলধারাসহ সাক্কু গ্রুপের অনেকেই নাখোশ দলের নীতি আদর্শবর্জিত কর্মকান্ডের জন্য। এবারে তিনি দল থেকে অব্যাহতি নিয়ে মেয়র প্রার্থী হয়েছেন।তার প্রতীক টেবিল ঘড়ি। সদ্য বিদায়ী মেয়র সাক্কুকে নিয়ে সাধারণ ভোটারদের অনেকেই বলেছেন,তিনি চেষ্টা করলে নগর কুমিল্লাকে মডেল সিটিতে রূপান্তর করতে পারতেন, কিন্তু তিনি বিএনপির মেয়র হয়ে আওয়ামী লীগের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সময় পার করেছেন। গত নির্বাচনে দেওয়া ৪৯টি প্রতিশ্রুতি তিনি রক্ষা ও বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখতে পারতেন। কিন্তু এসব প্রতিশ্রুতির বেশিরভাগই বাস্তবায়ন করতে পারেননি। আবার অনেক সাধারণ ভোটারের মতে, সাক্কু নগরীকে অনেকটা বর্ণিল করে সাজিয়েছেন।রাস্তার ওপর দাঁড়িয়ে ড্রেনেজ কাজ তদারকি করেছেন। নগরীর অন্তত ৮০ভাগ রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ, কালভার্ট, ডাষ্টবিন সংস্কার ও উন্নয়ন হয়েছে। মেয়রের আসনে ফের সাক্কু ফিরে এলে নগরীর উন্নয়নে আরো দায়িত্বশীল হবেন।

Last Updated on June 2, 2022 8:43 pm by প্রতি সময়

শেয়ার করুন
এই ধরনের আরও খবর...

বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!